১০ বছরে হোটেল–রেস্তোরাঁর ব্যবসা বেড়েছে ৮ গুণ (বিবিএসের জরিপের তথ্য)

১০ বছরে হোটেল–রেস্তোরাঁর ব্যবসা বেড়েছে ৮ গুণ

এক দশকে হোটেল-রেস্টুরেন্টের সংখ্যা যেমন বেড়েছে, তেমনি পাল্লা দিয়ে এই খাতে কর্মসংস্থানও বেড়েছে।

  • এবারের জরিপের তথ্য অনুযায়ী, দেশে এখন হোটেল-রেস্টুরেন্টের সংখ্যা ৪ লাখ ৩৬ হাজার ২৭৪।
  • হোটেল-রেস্টুরেন্ট খাতে কর্মসংস্থান হয়েছে ২২ লাখ ৮৩ হাজার ৫৩২ জনের।

অপেক্ষাকৃত কম পুঁজিতে বাংলাদেশে হোটেল-রেস্টুরেন্ট ব্যবসা বেশ লাভজনক এবং জনপ্রিয়ও। শুধু ঢাকা নয়, জেলা ও উপজেলাতেও প্রতিনিয়ত নতুন নতুন হোটেল-রেস্টুরেন্ট গড়ে উঠছে। বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর (বিবিএস) জরিপ বলছে, গত এক দশকে মোট দেশজ উৎপাদন বা জিডিপিতে মূল্য সংযোজন বেড়ে হয়েছে আট গুণ। এক দশক আগে ২০০৯-১০ অর্থবছরে হোটেল-রেস্টুরেন্ট থেকে মূল্য সংযোজন হয়েছিল মাত্র ১১ হাজার ৯৮৬ কোটি টাকা। সর্বশেষ ২০১৯-২০ অর্থবছরে হোটেল-রেস্টুরেন্ট খাত থেকে মূল্য সংযোজন হয়েছে ৮৭ হাজার ৯২৬ কোটি টাকা, যা ২০০৯-১০ অর্থবছরের চেয়ে প্রায় আট গুণ বেশি।

চলতি বছরের ২৭ মার্চ থেকে ১০ এপ্রিল পর্যন্ত দৈবচয়নের ভিত্তিতে দেশের ৬ হাজার ৭৩৪টি হোটেল-রেস্টুরেন্টের ওপর জরিপটি পরিচালনা করে বিবিএস। বিবিএসের ১৫১ জন গণনাকারী ও ৮০ জন সুপারভাইজার মাঠ পর্যায় থেকে তথ্য সংগ্রহ করেছেন। ২০১৩ সালের অর্থনৈতিক শুমারি ও ২০১৯ সালের বিজনেস ডিরেক্টরি থেকে তথ্য নিয়ে জরিপটি করা হয়েছে। জরিপের প্রাথমিক ফলাফল সম্প্রতি সংস্থাটির ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হয়েছে।

জানতে চাইলে বিবিএসের যুগ্ম পরিচালক ও ফোকাল পয়েন্ট আক্তার হোসাইন প্রথম আলোকে বলেন, হোটেল-রেস্টুরেন্ট জরিপটি করার মূল উদ্দেশ্য ছিল, এক দশকে সারা দেশে হোটেল-রেস্টুরেন্টের সংখ্যা কত বেড়েছে ও জিডিপিতে এই খাত থেকে কী পরিমাণ মূল্য সংযোজন হচ্ছে, তা জানা। এই খাতে কত মানুষ কর্মরত আছেন, সেই তথ্যও বের করা হয়েছে এ জরিপ থেকে। প্রতি ১০ বছর পরপর জরিপটি করা হয়। এর আগে ২০০৯-১০ অর্থবছরে শেষ জরিপ করা হয়েছিল।

এবারের জরিপের তথ্য অনুযায়ী, দেশে এখন হোটেল-রেস্টুরেন্টের সংখ্যা ৪ লাখ ৩৬ হাজার ২৭৪। এক দশক আগে এই সংখ্যা ছিল ২ লাখ ৭৫ হাজার ৩২৪। এই খাতে এক দশকে কর্মসংস্থানও বেড়েছে উল্লেখযোগ্য। এই খাতে কর্মসংস্থান হয়েছে ২২ লাখ ৮৩ হাজার ৫৩২ জনের। যার মধ্যে পুরুষের সংখ্যা ১৮ লাখ ৩৭ হাজার। বাকিরা নারী। এক দশক আগে হোটেল-রেস্টুরেন্ট খাতে কর্মসংস্থান ছিল ৯ লাখ ৩৭ হাজার ৮৪ জনের।

জরিপের তথ্যে আরও বেরিয়ে এসেছে, হোটেল-রেস্টুরেন্টে যাঁরা নিয়োজিত আছেন, তাঁদের মজুরি বা বেতনের পেছনে সংশ্লিষ্ট এক অর্থবছরে খরচ হয়েছে ১৫ হাজার ৭৬৭ কোটি টাকা। তাতে প্রতিবছর একজন শ্রমিকের মজুরির পেছনে খরচ হয়েছে গড়ে ৬৯ হাজার ৪৮ টাকা।

বিবিএস বলছে, করোনার প্রভাবে হোটেল-রেস্টুরেন্ট ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে এটা ঠিক। তবে এক দশকে এই খাত বেশ বিকশিত হয়েছে।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.