যেসব কারণে সাবান-পানিতে হাত ধোয়া জরুরি

হাত ধোয়া সব সময়ই একটি ভালো অভ্যাস। যে কোনো ধরনের রোগ থেকে শত হাত দূরে থাকা যায়। আমরা সবাই জানি, হাত না ধুয়ে খাবার খেলে নানা রকম রোগ-বালাই, পেটের অসুখে পড়তে হয়। সাধারণ ঠাণ্ডা-কাশি, ইনফ্লুয়েঞ্জাও ছড়িয়ে পড়ে একজন থেকে অন্যজনের শরীরে। করোনার এই সময়ে হাত ধোয়ার গুরুত্ব বেড়ে গেছে বহুগুণ। কারণ এই ছোট্ট অভ্যাসটির মাধ্যমে নিজেকে যেমন করোনার আক্রমণ থেকে রক্ষা করা যায়, ঠিক তেমনি রক্ষা করা যায় পরিবারের সব সদস্যকেও। সেই সঙ্গে সংক্রমণ রোধ করে রক্ষা করা যায় প্রতিবেশী ও অন্যদের।

করোনা ভাইরাসটি অতিমাত্রায় সংক্রামক এবং সহজে মরে না এমন প্রকৃতির। বারবার চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য বদলে ফেলে। বাংলাদেশেই এখন পর্যন্ত চরিত্র বদলে ফেলেছে ৫৯০ বার। আপনার হাতে কোনোভাবে এটা লাগলে আপনি যেখানে হাত দেবেন, সেখানেই এটা লেগে যাবে এবং সেখান থেকে অন্য সবার শরীরে ছড়িয়ে যাবে। তাই বারবার হাত ধোয়ার গুরুত্ব অনেক বেশি। কে, কোথায় এটা লাগিয়ে দিয়েছে, আপনি জানেন না; আর আপনার হাত সেখানে পড়তেই পারে।

সাবান-পানি দিয়ে কমপক্ষে ২০ সেকেন্ড ধরে ভালো করে ফেনা তুলে তারপর কনুইয়ের নিচ থেকে পুরো হাত পরিষ্কার পানি দিয়ে ধুতে হবে। মনে রাখবেন, হাত না ধোয়া কিংবা যেমন-তেমন করে হাত ধোয়া আর ইচ্ছে করে নিজেকে ও অন্য সবাইকে করোনা আক্রান্ত করাÑ একই কথা। তাই চেষ্টা করুন সর্বদা যেন আপনার হাত নিরাপদ থাকে। খাবারের আগে, খাবার তৈরির আগে, পায়খানা-প্রস্রাবের পরে, হাঁচি-কাশির পরে, যে কোনো কারণে হাতে ময়লা লাগলে, বাইরে থেকে আসার পরে অবশ্যই আপনার হাত ভালো করে ধুয়ে নিন।

মনে যদি প্রশ্ন আসে কেন এমন করে হাত ধুতে হবে? উত্তর জেনে নিন কিন্তু আমার এ ছোট অনুরোধটুকু মানুন।

করোনা ভাইরাস একটি অতিক্ষুদ্র প্রোটিন-লিপিডের (আমিষ ও চর্বি) মিশ্রণ। অথচ ভীষণ শক্তিশালী ও আত্রমণাত্মক! এর ধ্বংস বা ক্ষয় নির্ভর করে তাপমাত্রা, আর্দ্রতা এবং কি উপাদান দিয়ে ধ্বংস করার চেষ্টা করা হচ্ছে, তার ওপর। চর্বির স্তরে মুড়িয়ে থাকার কারণে ভাইরাসটি সাবান ও ডিটারজেন্ট সহ্য করতে পারে না। কারণ সাবান ও ডিটারজেন্ট যে কোনো স্থানের তেল বা চর্বি সরাতে পারে।

এ কারণে থালা-বাসনের তেল-চর্বি পরিষ্কার করতে অধিক ক্ষারীয় সাবান ব্যবহার করা হয়। কারণ ক্ষারীয় পরিবেশে চর্বি গলে যায়। সুতরাং সাবান যত বেশি ক্ষারীয় হবে, ভাইরাস ধ্বংস হওয়ার সম্ভাবনা তত বেশি। কাপড় কাচা সাবান সেজন্য এ ক্ষেত্রে বেশি কার্যকর। তা হলে কমপক্ষে ২০ সেকেন্ড কেন? হ্যাঁ, একটু সময় নিয়ে প্রচুর ফেনা তৈরি করলে ভাইরাসের গায়ের চর্বির স্তর ভেঙে গিয়ে এটি পুরোপুরি অকার্যকর হয়ে যাবে।

আরেকটি কথা, হাতের সব জায়গায় যেন ভালোমতো সাবান লাগে, সেটা অবশ্যই মাথায় রাখতে হবে। কনুই থেকে আঙুলের মাথা, নখের ভেতর পর্যন্ত সাবান লাগাতে হবে। কারণ এসব স্থান সংক্রমিত হওয়ার আশঙ্কা সবচেয়ে বেশি। এবার ভালো করে পরিষ্কার পানি দিয়ে হাত ধুয়ে ফেললে হাত নিরাপদ হয়ে গেল। সবাই ভালো থাকুন, সুস্থ থাকুন, করোনামুক্ত থাকুন।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.