ভারী বর্ষণ ফের বাড়াবে বন্যার ভয়াবহতা

ভারী বর্ষণ ফের বাড়াবে বন্যার ...

দেশের সকল বিভাগেই ভারী থেকে অতিভারী বর্ষণের আশঙ্কার কথা জানিয়েছে আবহাওয়া অফিস। এদিকে বর্তমানে দেশের ১৬টি জেলা বন্যায় আক্রান্ত। ১৩টি নদীর পানি ২১টি পয়েন্টে বিপৎসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এরই মধ্যে উজানে ভারত সংলগ্ন বিভিন্ন অংশে ভারী থেকে অতিভারী বৃষ্টিপাত হয়েছে। এ কারণে আবারও বন্যার পানি অতি দ্রুত বাড়তে পারে বলে আশংকা প্রকাশ করেছে বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্র।

পানি উন্নয়ন বোর্ডের প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে বলা হয়, আগামী ২১ জুলাই থেকে ৪ দিন পুনরায় ভারতের আসাম, হিমালয় পাদদেশীয় পশ্চিমবঙ্গ ও উত্তর-পূর্ব ভারতে ভারী বৃষ্টিপাত হওয়ার পূর্বাভাস রয়েছে। ফলে দেশের উত্তর, উত্তর-পূর্ব ও মধ্যাঞ্চলে একইভাবে বন্যা পরিস্থিতি সৃষ্টি হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।

এ বিষয়ে সরকারের বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্রের নির্বাহী প্রকৌশলী আরিফুজ্জামান ভূঁইয়া বলেন, পূর্বাভাস তথ্যমতে আগামী ২০ জুলাই থেকে ৪ দিন উজানে প্রায় ৮০০ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত হতে পারে; যা দেশের নদ-নদীতে পানির চাপ বাড়াবে। তবে পানি বাড়লেও আগামী ২৬-২৭ জুলাই থেকে পদ্মার পানি অব্যাহতভাবে হ্রাস পাওয়া শুরু করতে পারে। জুলাই মাসের শেষ বা আগস্টের প্রথম সপ্তাহে সার্বিক বন্যা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়ে আসতে পারে।

সার্বিক বন্যা পরিস্থিতির উন্নতির আশা জানিয়ে পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক বলেন, পদ্মা নদীর পানি ইতোমধ্যে হ্রাস পাওয়া শুরু করেছে, ফলে আগামী ২-৩ দিনের মধ্যে মধ্যাঞ্চলের জেলাগুলোতে বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি আশা করছি। চলতি বন্যায় বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধের বড় কোনো ভাঙন হয় নাই। মন্ত্রণালয় এবং পানি উন্নয়ন বোর্ড স্থানীয় জেলা প্রশাসনের সহযোগিতায় যেকোনো জরুরি পরিস্থিতি তাৎক্ষণিকভাবে মোকাবিলায় প্রয়োজনীয় সামগ্রী ও জনবল নিয়ে মাঠ পর্যায়ে প্রস্তুত আছে।

জুলাই মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহে ভারতের আসাম, পশ্চিমবঙ্গ ও উত্তর-পূর্ব ভারতে ৪ দিনে প্রায় ৯০০ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত হয়। ফলে দেশের উত্তর ও উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে বন্যা সৃষ্টি হয়; যা পদ্মা নদীর মাধ্যমে নামার সময় দেশের মধ্যাঞ্চলে অবস্থিত জেলাসমূহ রাজবাড়ী, ঢাকা, মুন্সিগঞ্জ, ফরিদপুর, মাদারীপুর, শরীয়তপুর ও চাঁদপুর জেলার নিম্নাঞ্চলে বন্যা পরিস্থিতি তৈরি করে।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.