বাংলাদেশসহ ৬ দেশের ভ্রমণকারীদের কাতারে বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টিন

কাতার

কাতার ভ্রমণকারী বাংলাদেশসহ ছয় এশীয় দেশের নাগরিকদের জন্য হোটেলে কোয়ারেন্টিন বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। দেশটির জনস্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এ নির্দেশ দিয়েছে। কাতারের শীর্ষ ইংরেজি দৈনিক দ্য পেনিনসুলার অনলাইন সংস্করণে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানা গেছে। আজ মঙ্গলবার এ প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে।

কাতারের জনস্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, আগামী বৃহস্পতিবার থেকে এ নির্দেশ কার্যকর হবে। কাতারের রাজধানী দোহার স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার রাত ১২টা থেকে এ নির্দেশ কার্যকর হবে। ভারতে করোনাভাইরাসের ব্যাপক সংক্রমণের জন্যই এ ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

বাংলাদেশসহ আর যেসব দেশের নাগরিকদের কোয়ারেন্টিন বাধ্যতামূলক করা হলো, সেসব দেশের মধ্যে আছে ভারত, নেপাল, পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কা ও ফিলিপাইন।

নির্দেশে বলা হয়েছে, ভ্রমণকারীদের টিকা নেওয়া থাকলেও তাঁদের কোয়ারেন্টিন বাধ্যতামূলক। আর এটি ঘরে করা যাবে না, হোটেলে থাকতে হবে। কাতার সরকারের নির্ধারিত কোয়ারেন্টিন–সুবিধায় ১০ দিনের জন্য থাকতে হবে। আর প্রত্যেক ভ্রমণকারীর ভ্রমণের সময় থেকে ৪৮ ঘণ্টা আগের নিজ দেশে পিসিআর টেস্টে করোনার নেগেটিভ রিপোর্ট থাকতে হবে।

ভ্রমণকারীরা যখন কাতারে কোয়ারেন্টিনে থাকবেন, তখন সেখানে আসার এক দিনের মধ্যেই আবার পিসিআর টেস্ট করা হবে। কোয়ারেন্টিনের মেয়াদ শেষ হওয়ার দিনও এ টেস্ট হবে।

যাঁরা কাতারকে ট্রানজিট হিসেবে ব্যবহার করবেন, তাঁদের জন্যও পিসিআর টেস্ট বাধ্যতামূলক। আর এ জন্য নতুন গন্তব্যে যাওয়ার আগে তাঁদের হামাদ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পিসিআর টেস্ট করা হবে। এ জন্য নির্ধারিত ৩০০ কাতারি রিয়াল দিতে হবে

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.