পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া ঘাটে অব্যাহত যানজটে চরম দুর্ভোগ

পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া ঘাটে চারদিন ধরে লাগাতার অব্যাহত যানজটে যাত্রী এবং যানবাহন শ্রমিকদেরকে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। দুই পারে ফেরি পারাপারের অপেক্ষায় রয়েছে পণ্যবাহী ট্রাকসহ ৭ শতাধিক যানবাহন।

ঘাট এলাকার অদুরে মহাসড়কের ওপর ৪কিলোমিটার এলাকা জুড়ে পণ্যবাহী ট্রাক আটকিয়ে রাখা হয়েছে। অগ্রাধীকারের ভিত্তিত্বে যাত্রীবাহী যানবাহন পারাপার করায় পণ্যবাহী ট্রকাগুলোকে ২/৩দিন করে অপেক্ষা করতে হচ্ছে ফেরি পারাপারের জন্য। ফলে সবচেয়ে বেশী দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে এসব যানবাহন শ্রমিকদেরকে। নব্যতা সংকট, শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ী নৌরুটে ফেরি চলাচল ব্যাহত এবং যানবাহনের চাপ বৃদ্ধির কারণে পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া ঘাটে এ অচলাবস্থার সৃষ্টি হয়েছে।

বিআইডব্লিউটিসি’র সুত্রে জানা গেছে, নদীতে প্রবল স্রোতে এবং নাব্যতা সংকটের কারণে শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ী নৌ-রুটে দফায় দফায় ফেরি চলাচল বন্ধ থাকছে। এতে ব্যহত হচ্ছে যানবাহন পারাপার । ফলে ওই নৌ-রুটের যানবাহনগুলো এখন পারাপার হচ্ছে পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌপথে। এতে এ নৌপথে যানবাহনের চাপ বাড়ছে।

যানবাহনের চাপ বাড়লেও ফেরির সংখ্যা বাড়েনি। ফলে প্রতিদিন স্বাভাবিকের চেয়ে তিন/চারশ’ বেশী গাড়ি পারাপার করতে হিমশীম ক্ষেতে হচ্ছে ফেরি কর্তৃপক্ষকে।

এদিকে নদীতে অস্বাভাবিক মাত্রায় পানি কমার কারণে নাব্যতা সংকট দেখা দেওয়ায় পাটুরিয়া ঘাটের ব্যাচিন এলাকা এবং পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌরুটেও গত ২৮ আগস্ট থেকে চারটি ড্রেজার দিয়ে খনন কাজ শুরু করেছে কর্তৃপক্ষ। এতে গত ৩০ আগস্ট থেকে পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌরুটের এ্যাপ্রোচ (পুরাতন বা মুল চ্যানেল) দিয়ে ফেরি চলাচল বন্ধ রয়েেেছ। পাটুরিয়া লঞ্চ ঘাটের অদুরে উপরের অংশ এবং মধুমতির নীচের অংশ দিয়ে ওয়ান-ওয়ে পদ্ধতিতে শুরু চ্যানেল দিয়ে অনেক ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় ফেরি চলাচল করছে।

এতে ৮ থেকে ১০মিনিট করে সময় বেশী লাগছে এবং ফেরি ট্রিপ সংখ্যা কম হচ্ছে। ফলে দুই পারে গাড়ি জমা হয়ে বিশেষ করে পণ্যবাহী ট্রাকগুলোকে ফেরি পার হতে ৩/৪দিন করে অপেক্ষা করতে হচ্ছে।

এছাড়া ঘাট এলাকা যানজট মুক্ত রাখতে পুলিশ পণ্যবাহী ট্রাকগুলোকে মানিকগঞ্জের শিবালয়ের পাটুরিয়া ঘাটের অদুরে উথলী মোড় থেকে আরিচা দিকে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের আটকিয়ে রাখছে। রাজবাড়ির দৌলতদিয়া প্রান্তে দৌলতদিয়া-খুলনা মহাসড়কের উপর আটকিয়ে রাখছে।

এতে দুই পারেই বুধবার দুপুরে এ রির্পোট লেখা পর্যন্ত টার্মিনাল পরিপূর্ণ হয়ে মাহসড়কের চার কিলোমিটার এলাকা জুড়ে পণ্যবাহী ট্রাকের সারি রয়েছে। ভোগান্তিতে পড়েছে এসব ট্রাকের শ্রমিকরা।

ট্রাক শ্রমিক আব্দুল হাই বলেন, গত মঙ্গলবার দিবাগত রাত ১২টার দিকে উথলী মোড়ে আসলে পুলিশ ওখানে ট্রাক আটকিয়ে আরিচা ঘাটের দিকে পাঠিয়ে দেন।রাতে আরিচা ঘাটের কাছে মহাসড়কের ওপর সারি বদ্ধভাবে থাকি। কখন ঘাটে পৌঁছাবো এবং ফেরি পার হতে পারবো তা বলতে পারছি না।

বিআইডব্লিউটিসি’র মেরিণ বিভাগ সুত্রে জানা গেছে, পদ্মায় অস্বাভাবিক মাত্রায় পানি কমছে। প্রতিদিন ১০/১২ সেন্টিমিটার করে পানি কমছে।

এতে পাটুরিয়া-দৌলতদিয়ার পুরাতন (মুল চ্যানেলে) নাব্যতা সংকট দেখা দিয়েছে। এ চ্যানেলে ড্রেজিং কাজ চলায় ফেরি চলাচল বন্ধ রয়েছে। এতে ফেরিগুলো বিকল্প চ্যানেল দিয়ে ওয়ান-ওয়ে পদ্ধতিতে ঝুকিপূর্ণ অবস্থায় চলাচল করছে এবং সময় বেশী লাগায় ফেরির ট্রিপ সংখ্যা কম হচ্ছে।

বিআইডব্লিউটিসি’র আরিচা আঞ্চলিক কার্যালয়ের ডিপুটি জেনারেল ম্যানেজার জিল্লুর রহমান বলেন, মাওয়ায় ফেরি চলাচল ব্যহত, যানবাহনের চাপ বৃদ্ধির কারণে এ অচলাবস্থার সৃষ্টি হয়েছে।

মাওয়া রুটের গাড়িগুলো পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌরুট ব্যবহার করছে। ফলে প্রতিদিন স্বাভাবিকের চেয়ে তিন/চারশ’ বেশী গাড়ি পারাপার করতে হচ্ছে।

যাত্রীবাহী যানবাহন অগ্রাধিকারের ভিত্তিতে পারাপার করায় দুই পারেই পণ্যবাহী ট্রাক জমে যাচ্ছে।

তবে মাওয়ায় ফেরি চলাচল স্বাভাবক হলে এবং পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌরুটের ফেরি বহরে আরো একটি রো-রো ফেরি সংযোগ করলে হয়তো এ সমস্যা থাকবে না বলে তিনি জানান।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.