পর্যটন’ নামে স্বতন্ত্র মন্ত্রণালয় গঠনের দাবি

পর্যটনকে 'শিল্পখাত' হিসেবে স্বীকৃতির দাবি

দেশের পর্যটন খাতকে শিল্প হিসেবে ঘোষণা, এর সঙ্গে যুক্তদের শ্রমিক হিসেবে ঘোষণা, মজুরি কাঠামো প্রণয়নসহ ‘পর্যটন’ নামে স্বতন্ত্র মন্ত্রণালয় গঠনের দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ ট্যুরিজম অ্যান্ড হোটেলস ওয়ার্কার্স-এমপ্লয়িজ ফেডারেশন।
গতকাল  জাতীয় প্রেস ক্লাবের ‘বাজেট ভাবনা: করোনাকালে বিপর্যস্ত পর্যটন খাত এবং পর্যটন শিল্পের শ্রমিক-কর্মচারীদের সুরক্ষায় করণীয়’ শীর্ষক আলোচনা সভায় বক্তারা এসব দাবি জানান।

বক্তারা বলেন, করোনা সংক্রমণের পূর্বে ২০১৯ সালে বাংলাদেশের জিডিপিতে পর্যটন খাতের অবদান ছিল ৭৭ হাজার ৩০০ কোটি টাকা। এই খাতে পরিকল্পিত উদ্যোগ গ্রহণ করলে ২০৫০ সাল নাগাদ ৫১টি দেশের পর্যটকরা বাংলাদেশ ভ্রমণ করবে, যা দেশের মোট জিডিপিতে ১০ শতাংশের বেশি ভূমিকা রাখবে। পর্যটন খাতের ৪০ লাখ শ্রমিক-কর্মচারী এবং তাদের উপর নির্ভরশীল প্রায় ২ কোটি জনগোষ্ঠীর জীবন-জীবিকা নিশ্চিত করার পাশাপাশি এই খাতকে দেশের অর্থনীতির একটি প্রধান ভিত্তি হিসেবে গড়ে তুলতে হবে।
সভায় করোনায় বিপর্যস্ত পর্যটন খাত পুনর্গঠন, শ্রমিক-কর্মচারীদের সুরক্ষায় বাজেটে বিশেষ বরাদ্দ এবং  অগ্রাধিকার ভিত্তিতে সুরক্ষা সামগ্রী ও টিকা প্রদানের দাবি জানানো হয়েছে।

সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্টের সভাপতি রাজেকুজ্জামান রতন বলেন, পর্যটনকে অনেকেই শিল্প হিসেবে ঘোষণা দিতে চান না। অথচ গুরুত্ব বিবেচনায় এই পর্যটন খাতকে শিল্প হিসেবে যুক্ত করার সময় এসেছে। শ্রম আইনে শ্রমিকদের বিভিন্ন ভাগে যুক্ত করা আছে। পর্যটন শ্রমিকদেরও একই আইনে কয়েকটি শ্রেণিতে ভাগ করার প্রয়োজন।

তাদের গ্রেডভিত্তিক মজুরি নির্ধারণ প্রয়োজন। আর এসব দাবি আদায় করতে হলে সবাইকে একসঙ্গে আওয়াজ তুলতে হবে।
তিনি বলেন, গার্মেন্টস, বায়ার, এনজিও এবং রাষ্ট্রীয় পর্যায়ের কনসালটেন্টরা দেশে আসছে, কাজের বাইরে তারা ঘুরতে চাইছে এবং বিদেশি ডলার খরচ করছে। এক্ষেত্রে পর্যটনের লোকেরা দেশের অ্যাম্বাসেডর হিসেবে কাজ করছেন। অথচ এ খাত থেকে দেশ হাজার হাজার কোটি টাকা আয় করলেও পর্যটনের সঙ্গে যুক্তদের চেহারায় অপ্রাপ্তির ছায়া দেখতে পাই।
সংগঠনের আহ্বায়ক মো. রাশেদুর রহমানের সভাপতিত্বে আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন বাংলাদেশ ট্যুরিজম ফাউন্ডেশনের সভাপতি মোখলেছুর রহমান, বাংলাদেশ নৌযান শ্রমিক ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী আশিকুল আলম, বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক ওসমান আলী, বাংলাদেশ ট্যুরিজম এক্সপ্লোরার্স এসোসিয়েশনের চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম সাগর প্রমুখ।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.