পর্যটন কেন্দ্রে সবাইকে অবশ্যই স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে – পর্যটন প্রতিমন্ত্রী

বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী মোঃ মাহবুব আলী এমপি বলেছেন, কোভিড ১৯ এর কারনে বন্ধ থাকা দেশের পর্যটন কেন্দ্রগুলো আস্তে আস্তে খুলতে শুরু করেছে। পর্যটন কেন্দ্রগুলোতে পর্যটক ও পর্যটন শিল্পের সাথে জড়িত সবাই যাতে স্বাস্থ্যবিধি ও অন্যান্য নির্দেশনাবলী অক্ষরে অক্ষরে পালন করে সেই ব্যাপারে স্থানীয় প্রশাসনকে সজাগ দৃষ্টি রাখতে হবে।

পর্যটক ও জনসাধারণ যাতে কোনো ধরনের স্বাস্থ্যগত হুমকিতে না পড়েন এই বিষয়টি স্থানীয় প্রশাসন কঠোর ভাবে মনিটরিং করবেন। পর্যটন কেন্দ্রে সবাইকে অবশ্যই স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। এর কোন বিকল্প নেই।

স্থানীয় উন্নয়ন পরিকল্পনায় পর্যটনকে সম্পৃক্তকরণ ও পর্যটন সম্পর্কে জনসচেতনতা তৈরির লক্ষ্যে আজ  বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ড কর্তৃক পিরোজপুর জেলার সাথে আয়োজিত অনলাইন কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তব্য প্রদানকালে এ কথা বলেন তিনি।

তিনি আরো বলেন, পর্যটন স্থানীয় কারুশিল্প ও এর সাথে জড়িত জনগণের জীবনমান উন্নয়নে কাজ করে। স্থানীয় কারুশিল্প ও বৈশিষ্ট্য মন্ডিত কৃষি পণ্যের প্রচার ও প্রসারের মাধ্যমেও পর্যটন গন্তব্যসমূহকে বিশ্বের কাছে তুলে ধরা সম্ভব।

পিরোজপুর এর ঐতিহ্যবাহী শীতলপাটি, নেছারাবাদের ক্রিকেট ব্যাট, স্বরূপকাঠির ভাসমান পেয়ারা বাজার, নেছারাবাদ ও নাজিরপুরের ভাসমান সবজি বাগান, মাল্টা চাষের বিষয়গুলো যথাযথ প্রচারের মাধ্যমে পর্যটকদের কাছে তুলে ধরতে হবে। এগুলির উন্নয়নে স্থানীয় প্রশাসনকে সঠিক পরিকল্পনার মাধ্যমে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। এই বিষয়গুলোকে উপজীব্য করে পিরোজপুরের পর্যটনের উন্নয়নে বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ডও পরিকল্পনা গ্রহণ করবে।

মাহবুব আলী বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী নারীর ক্ষমতায়নে সারাবিশ্বে উদাহরণ সৃষ্টি করেছেন। পর্যটনের মাধ্যমে নারীর ক্ষমতায়ন সম্ভব। পর্যটন নারীকে আর্থিকভাবে স্বাবলম্বী করে তুলবে। পর্যটনের সাথে জড়িত সকল নারী উদ্যোক্তাদের বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয় সকল প্রকার নীতিগত সহায়তা প্রদান অব্যাহত রাখবে।

এসময় প্রতিমন্ত্রী পিরোজপুরে পর্যটনের সাথে জড়িত নারী উদ্যোক্তাদের সহযোগিতা করার বিষয়ে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ড কে নির্দেশনা প্রদান করেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, আজকের এই আলোচনার অন্যতম উদ্দেশ্য হলো পর্যটন সম্পর্কে স্থানীয় জনসাধারণের মধ্যে সচেতনতা সৃষ্টি। পর্যটনের সাথে স্থানীয় জনগণকে সরাসরি সম্পৃক্ত করা না গেলে পর্যটনের প্রকৃত বিকাশ ও উন্নয়ন অসম্ভব।

স্থানীয় জনগণ সচেতন ও সম্পৃক্ত হলে পর্যটক, পর্যটন কেন্দ্র ও পরিবেশ সবকিছুই সুন্দরভাবে ব্যবস্থাপনা করা সম্ভব হবে। স্থানীয় জনগণকে সচেতন ও উদ্বুদ্ধ করার জন্য স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, প্রশাসন ও সকল পর্যটন অংশীদারকে সক্রিয়ভাবে কাজ করতে হবে।

বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ডের পরিচালক আবু তাহের মুহাম্মদ জাবের এর সঞ্চালনায় ও পিরোজপুর জেলার জেলা প্রশাসক আবু আলী মোঃ সাজ্জাদ হোসেন এর সভাপতিত্বে কর্মশালায় আরও উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ডের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা জাবেদ আহমেদ, পিরোজপুর জেলার বিভিন্ন পর্যায়ের জনপ্রতিনিধিগণ, গণমাধ্যম কর্মী,বিভিন্ন পর্যায়ের সরকারি কর্মকর্তাবৃন্দ ও পর্যটনের সাথে সম্পৃক্ত বিভিন্ন সেক্টরের অংশীজন।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.