পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সামনে মালয়েশিয়া প্রবাসীদের অবস্থান

ভিসার মেয়াদ বাড়ানো ও মালয়েশিয়ায় ফেরার দাবিতে প্রবাসীরা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সামনে অবস্থান নিয়েছে।
ভিসার মেয়াদ বাড়ানো ও মালয়েশিয়ায় ফেরার দাবিতে প্রবাসীরা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সামনে অবস্থান নিয়েছে।

ভিসার মেয়াদ বাড়ানো ও মালয়েশিয়ায় ফেরার দাবিতে কয়েক শ প্রবাসী আজ সোমবার সকাল থেকে প্রায় সাড়ে তিন ঘণ্টা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সামনে অবস্থান নেন। সকাল ১০টা থেকে বেলা দেড়টা পর্যন্ত তাঁরা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সামনে অবস্থান কর্মসূচি পালন করেন।

সকালে প্রেসক্লাব এলাকা থেকে মিছিল নিয়ে তাঁরা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দিকে যান। মালয়েশিয়াপ্রবাসীদের অবস্থানের কারণে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সামনের রাস্তায় যান চলাচল বন্ধ ছিল।

প্রবাসী লিটন আহমেদ বলেন, করোনাভাইরাসের সংক্রমণের কারণে তিনি গত মার্চ মাসে দেশে এসেছেন। তাঁর ভিসার মেয়াদ শেষ হয়ে গেছে। হাতে টাকাপয়সাও নেই। তিনি কর্মস্থলে ফিরতে চান।

প্রবাসী মো. আজিম জানান, তিনিও গত মার্চ মাসে দেশে এসেছেন। তাঁর ভিসার মেয়াদ ডিসেম্বর মাসে শেষ হবে। তিনি মালয়েশিয়ায় ফিরে যেতে চান।

মালয়েশিয়াপ্রবাসীরা জানান, তাঁদের অনেকেরই ভিসার মেয়াদ শেষ হয়ে গেছে।

ডিসেম্বর মাস আসতে আসতে শতকরা ৯০ ভাগের ভিসার মেয়াদ শেষ হয়ে যাবে। তাঁরা কয়েকটি দাবিতে অবস্থান কর্মসূচি পালন করছেন।

এসব দাবির মধ্যে রয়েছে—১. মালয়েশিয়া সরকারের সঙ্গে আলোচনা করে তাঁদের ভিসার মেয়াদ বাড়ানো এবং সহজ স্বাভাবিক নিয়মে মালয়েশিয়া প্রবেশের অনুমতি দেওয়া; ২. চার্টার্ড ফ্লাইটে স্বাস্থ্যবিধি মেনে মালয়েশিয়া যাওয়ার ব্যবস্থা করা; ৩. কোনো প্রবাসী ছুটিতে এসে মারা গেলে তাঁর পরিবারকে ৫ লাখ টাকা আর্থিক সহায়তা প্রদান; ৪. প্রবাসীদের মরদেহ দেশে আনতে বিমান টিকিটসহ সব খরচ সরকারকে বহন করতে হবে; ৫. ছুটিতে আটকে পড়া সব প্রবাসীকে নগদ অর্থ সহায়তা ও প্রণোদনা দেওয়া; ৬. বিদেশে কারাগারে থাকা প্রবাসীদের বাংলাদেশ হাইকমিশনকে আইনি সহায়তা দিতে হবে।

ঘটনাস্থলে থাকা সহকারী পুলিশ কমিশনার (এসি) হাসান মুহতারি বলেন, প্রবাসীরা শান্তিপূর্ণ সমাবেশ করছেন। তাঁদের এই সমাবেশ পূর্বনির্ধারিত ছিল না। প্রবাসীদের একটি প্রতিনিধিদল পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে আলোচনা করতে যাবে বলে তিনি শুনেছেন।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.