টেকনাফ-সেন্টমার্টিনে পর্যটকবাহী জাহাজ চলাচল বন্ধ

টেকনাফ-সেন্টমার্টিনে পর্যটকবাহী জাহাজ চলাচল বন্ধ

গত পক্ষকাল ধরে কক্সবাজারে করোনার সংক্রমণ হঠাৎ আবারও বেড়েছে। ফলে করোনার প্রাদুর্ভাব ঠেকাতে কক্সবাজারের টেকনাফ-সেন্টমার্টিন নৌ-পথে পর্যটকবাহী জাহাজ চলাচল বন্ধ রাখার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। এ ঘোষণার পর পহেলা এপ্রিল থেকে সেন্টমার্টিনে পর্যটক ভ্রমণ বন্ধ হয়ে গেছে।

বৃহস্পতিবার (১ এপ্রিল) কক্সবাজার জেলা প্রশাসনের পর্যটন সেলের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সৈয়দ মুরাদ হোসেন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। এই নৌপথে ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত যাত্রীবাহী জাহাজ চলাচলের অনুমতি ছিল।

এর আগে বুধবার (৩১ মার্চ) রাতে টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) পারভেজ চৌধুরী বলেছিলেন, করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে সেন্টমার্টিনসহ টেকনাফের পর্যটন স্পটে ভ্রমণ বন্ধ করা সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, জেলা প্রশাসনের সেই সিদ্ধান্তে বৃহস্পতিবার (১ এপ্রিল) সকাল থেকে ওই নৌ-রুটে সব পর্যটকবাহী জাহাজ চলাচল বন্ধ রাখা হয়েছে। তবে অভ্যন্তরীণ নৌপথে যাত্রী পরিবহনে নিয়োজিত নৌ-যান চলাচল স্বাভাবিক থাকবে। অন্যদিকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে যাত্রী পরিবহনের জন্য নৌযানগুলোকে নির্দেশ দেয়া হয়।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ) সূত্র জানায়, গত বছরের ১২ নভেম্বর থেকে এ নৌ-পথে পর্যটক পরিবহনের জন্য বিভিন্ন মেয়াদে ৮টি জাহাজকে অনুমোদন দেয়া হয়েছিল। জাহাজগুলো হলো গ্রিন লাইন-১, বে ক্রুজ, এমভি পারিজাত, এমভি আটলান্টিক ক্রুজ, এমভি ফারহান-১, কেয়ারি সিন্দাবাদ, কেয়ারি ক্রুজ অ্যান্ড ডাইন ও এমভি শহীদ সালাম।

টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. পারভেজ চৌধুরী বলেন, প্রশাসনের সিদ্ধান্ত অমান্য করলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.