জাদুঘর থেকে পুনরায় মসজিদে রুপান্তর হলো তুরস্কের হায়া সোফিয়া

অবশেষে মসজিদে রুপান্তরিত হতে যাচ্ছে তুরস্কের বিখ্যাত স্থাপনা হায়া সোফিয়া। শুক্রবার তুরস্কের আদালতের এক রায়ের পর এই সংক্রান্ত ডিক্রি স্বাক্ষর করেন দেশটির প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ান।

এর ফলে, এখন থেকে সেখানে নামাজ আদায় করতে পারবেন মুসলিমরা। খবর তুরস্ক ভিত্তিক গণমাধ্যম টিআরটি ওয়ার্ল্ড’র।

বাইজান্টাইন সম্রাট জুস্টিনিয়ান এক’র তত্ত্বাবধানে ৫৩৭ সালে অর্থোডক্স গীর্জা হিসেবে গড়ে উঠেছিল হায়া সোফিয়া। ১৪৫৩ সালে অটোমানরা ইস্তাম্বুল জয়ের পর এটিকে মসজিদে রূপান্তর করা হয়।

তারপর ১৯৩৪ সালে খেলাফতের পতনের পর আধুনিক তুরস্কের স্থপতি মোস্তফা কামাল আতাতুর্ক হায়া সোফিয়াকে জাদুঘরে রূপান্তর করেন। দীর্ঘদিন ধরেই সেখানে নামাজ আদায়ের দাবি জানিয়ে আসছে তুর্কি মুসলিমরা।

হায়া সোফিয়াকে মসজিদে রুপান্তর করার শুনানির রায়ে দেশটির আদালত ১৯৩৪ সালে হায়া সোফিয়াকে জাদুঘরে রুপান্তরিত করে দেশটির প্রথম প্রেসিডেন্ট মোস্তফা কামাল আতাতুর্কের সিদ্ধান্তকে অবৈধ বলেও উল্লেখ করেন।

আদলতের রায়ের পর দেশটির প্রেসিডেন্টের কার্যালয়ের মুখপাত্র ইব্রাহিম কালিন বলেন, মসজিদে রুপান্তরিত হওয়ার পর হায়া সোফিয়া আগের মতোই বিশ্ব ঐতিহ্যের অংশ হিসেবে সংরক্ষণ করা হবে। একইসাথে তুরস্কের ব্লু মসজিদ, ফেতিহ ও সোলাইমান মসজিদের মতো অন্যান্য বিখ্যাত মসজিদের মতো এটি নিয়মিত দর্শনার্থীদের জন্যও খোলা থাকবে।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.