করোনার ক্ষতি কাটিয়ে উঠছে কক্সবাজার

করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউয়ের আশঙ্কার মধ্যেও আর্থিক বিপর্যয় কাটিয়ে উঠছে কক্সবাজারের পর্যটন খাত।
শীত আসতে না আসতেই লোকে লোকারণ্য কক্সবাজারের পর্যটন স্পটগুলো।
বিশেষ করে সাপ্তাহিক ছুটির দিনে সমুদ্র সৈকতে পর্যটকের ঢল নামছে।

বিশ্বের দীর্ঘতম সমুদ্র সৈকত কক্সবাজার।
নীল জলরাশি আর সবুজ পাহাড় ঘেরা এই পর্যটন কেন্দ্র তাই সবাইকে হাতছানি দিয়ে ডাকে সারাবছর।

করোনার কারণে দীর্ঘদিন সৈকতসহ পর্যটন স্পটগুলোতে পর্যটকের আগমনে নিষেধাজ্ঞা ছিল।
পরে পর্যটন ব্যবসা সচল রাখতে শর্তসহ নীতিমালা তৈরি করে খুলে দেয়া হয় সব কিছু।
তারপর থেকেই বাড়তে শুরু করে পর্যটকের আগমন।

পর্যটক আগমনে সৈকতের হকার থেকে শুরু করে রেস্তোরা, বার্মিজ মার্কেট ও ট্যুর অপারেটরদের মধ্যেও ফিরেছে প্রাণের সঞ্চার।
সব মিলিয়ে এই মুহুর্তে পর্যটনখাতের অবস্থা রমরমা।
করোনা বিপর্যয় কাটিয়ে ফের ঘুরে দাঁড়াচ্ছেন বলে জানান পর্যটন ব্যবসায়ীরা।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.